কুলতলিতে বাঘের গর্জন, পায়ের ছাপ! আতঙ্কে সিঁটিয়ে গ্রামবাসীরা
Reporter Name

কুলতলিতে বাঘের গর্জন, পায়ের ছাপ! আতঙ্কে সিঁটিয়ে গ্রামবাসীরা

 বাঘের ভয়েই নিত্য দিন কাটায় সুন্দরবন। প্রত্যন্ত জনপদগুলির বাসিন্দারা যে কখন কীভাবে দক্ষিণরায়ের কবলে পড়েন, তা জানলে শিউরে উঠতে হন। এবার কুলতলি ব্লকের লোকালয়ে বাঘের ভয় একেবারে ঘরের দুয়ারে!

শনিবার গভীর রাতে আজমলমারি ১ জঙ্গলের পাশের জঙ্গল থেকে বিশাল আকারের একটি রয়েল বেঙ্গল টাইগার লোকালয়ে চলে আসে কুলতলর মৈপীঠ উপকূল থানার পূর্ব দেবীপুর গ্রামে। রাতে বাঘের গর্জন শোনার পর থেকে রাতের ঘুম চলে গেছে এলাকাবাসীর।


এরপর রবিবার সকালেই বাঘের পায়ের ছাপ দেখতে পান তাঁরা। খবর দেওয়া হয় মৈপীঠ উপকূল থানা ও বন দফতরে। কিন্তু নদীতে অমাবস্যার কোটালে জোয়ারের জল বেশি থাকায় বন কর্মীরা সকালে পায়ের ছাপ ঠিকমতো দেখতে পাননি। তবে বেলায় ভাটার সময়ে তাঁরা জানান, বাঘ এসেছিল ঠিকই তবে এখন নেই। জঙ্গলে চলে গেছে আবার।

বন দফতর সূত্রের খবর, বাঘটি শনিবার রাতে লোকালয়ে এসেছিল এবং রবিবার সকালে আজমলমারি ২ জঙ্গলে চলে গেছে। মনে করা হচ্ছে, দিবাকরের খাল দিয়ে আসার পর খঞ্জনি খাল হয়ে সুন্দরবনের দিকে চলে গেছে সে।

নদী লাগোয়া পূর্ব দেবীপুর গ্রামের অধিকাংশ মানুষই কৃষিজীবী ও মৎস্যজীবী। ফলে বাঘের গর্জন ও পায়ের ছাপ গোটা গ্রাম জুড়েই বাঘের আতঙ্ক তুঙ্গে। খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: