ইয়েমেনের সেই ‘ডেয়ারিং’ অভিযানের বিস্তারিত তথ্য
Reporter Name

ইয়েমেনের সেই ‘ডেয়ারিং’ অভিযানের বিস্তারিত তথ্য

ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন সম্পর্কিত সামরিক বাহিনী সৌদি আরবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এবং বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল স্থাপনা আরামকোর ওপর ব্যাপকভিত্তিক হামলা চালিয়েছে।

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারিয়ি এ তথ্য জানিয়েছেন। আজ (মঙ্গলবার) সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে দেয়া কয়েকদফা পোস্টে তিনি হামলা সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে বলেন, ‘ডিসেম্বর সেভেন্থ  অপারেশন’ নামের এই অভিযানে রিয়াদ, জেদ্দা, জিজান, নাজরান এবং আসির প্রদেশের সামরিক স্থাপনায় হামলা চালানো হয়েছে। তবে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা  যায় নি।

তিনি জানান, বিস্ফোরক বোঝাই ছয়টি সামাদ-৩ ড্রোন এবং কয়েকটি জুলফিকার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, কিং খালেদ এয়ারপোর্ট এবং অন্য কয়েকটি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালানো হয়।


জেনারেল সারিয়ি জানান, আরো ছয়টি সামাদ-২ ও সামাদ-৩ ড্রোন দিয়ে তায়েফের কিং ফাহাদ বিমানঘাঁটি এবং জেদ্দার আরামকো তেল স্থাপনায় হামলা চালানো হয়।

জেনারেল সারিয়ির তথ্য অনুসারে, পাঁচটি সামাদ-১ ও সামাদ-৩ এবং আটটি কাসেফ-টুকে ড্রোন ও বহুসংখ্যক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র আবহা, জিজান এবং আসির প্রদেশের স্পর্শকাতর ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ওপর আঘাত হেনেছে। তিনি বলেন, ইয়েমেনের জনগণের ওপর সৌদি বর্বর অপরাধযজ্ঞের পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে এই হামলা চালানো হয়। জেনারেল সারিয়ি অঙ্গীকার ব্যক্ত করে বলেন, সৌদি অপরাধযজ্ঞ অব্যাহত থাকলে ইয়েমেনি সেনারা এ ধরনের আরো সামরিক অভিযান চালাবে।

এর আগে গতকাল সন্ধ্যায় জেনারেল সারিয়ি সৌদি আরবের ওপর ইয়েমেনি বাহিনীর দুঃসাহসিক অভিযানের খবর দিয়েছিলেন। সেসময় তিনি বলেছিলেন, শিগগিরি এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে।

এদিকে, সৌদি আরব দাবি করেছে, রাজধানী রিয়াদ এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় খামিস মুশাইত শহরের ওপর দুটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করেছে তাদের সেনা বাহিনী। তবে আরামকো তেল স্থাপনার ওপর হামলা সম্পর্কে সৌদি কর্তৃপক্ষ কোনো মন্তব্য করে নি। খবর পার্সটুডে/২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: