ঢাকা, শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:১৮ অপরাহ্ন
বিশ্বসেরা ধনকুবেরদের খাতায় নাম লেখালেন ক্রিপ্টোর সিইও
Reporter Name

বিশ্বসেরা ধনকুবেরদের খাতায় নাম লেখালেন ক্রিপ্টোর সিইও

ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ বিনান্স এর পরিচালক চাংপেং ঝাও ৯৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সম্পদ নিয়ে বিশ্বের শীর্ষ ধনকুবেরদের তালিখায় নাম লিখিয়েছেন। ঝাওয়ের সম্পদ এখন ওরাকলের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি এলিসন এবং মুকেশ আম্বানিকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে। সিএনএন

গত বছর ক্রিপ্টোর অন্যান্য প্রতিষ্ঠাতারাও ভার্চুয়াল মুদ্রার মূল্য বৃদ্ধির ফলে বিপুল পরিমাণ লাভ ঘরে তোলেন। ইথেরিয়ামের নির্মাতা ভিটালিক বুটেরিন এবং কয়েনবেসের প্রতিষ্ঠাতা ব্রায়ান আর্মস্ট্রং উভয়েই ধনকুবেরের খাতায় নাম লেখান।

ঝাও ২০১৭ সালে বিন্যান্স চালু করেন এবং ধীরে ধীরে এটিকে বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জগুলির মধ্যে একটিতে পরিণত করেছেন। কানাডার অভিবাসী পরিবারে বেড়ে ওঠা এই তরুণ আগে পরিবারকে সহায়তা করার জন্য ম্যাকডোনাল্ডে কাজ করেছেন। ম্যাকগিল ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্সে পড়ার পর তিনি টোকিও স্টক এক্সচেঞ্জ এবং ব্লুমবার্গের জন্য ট্রেডিং সফটওয়্যার নিয়ে কাজ করেন। ২০১৩ সালে বিটকয়েন সম্পর্কে জানার পর ক্রিপ্টো নিয়েই কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন। এমনকি বিটকয়েন কেনার জন্য নিজের অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রি করেছিলেন।

অন্যান্য এক্সচেঞ্জের মতো বিনান্স সাম্প্রতিক মাসগুলিতে বিশ্বজুড়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর উল্লেখযোগ্য বাধার সম্মুখীন হয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা এবং কানাডাসহ অন্যান্য দেশগুলোতে ক্রিপ্টোর ওপর বিধিনিষেধ।

তবে ঝাও বলেন, বিধি-বিধানগুলোএই শিল্প পরিপক্ক হওয়ার ইতিবাচক লক্ষণ। বৃহত্তর জনসংখ্যা যেনো ক্রিপ্টোতে আসতে নিরাপদ বোধ করে বিধি-বিধান তারই ভিত্তি স্থাপন করে।


বিনান্স দ্বারা সমর্থিত আরেকটি ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জ এফটিএক্স-এর সিইও স্যাম ব্যাঙ্কম্যান-ফ্রাইড বলেন, ‘গত কয়েক বছরে ক্রিপ্টো শিল্পে অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। আমি মনে করি এখন অনেক লোক আছে যরা এটি দিয়ে কি করা উচিত তা নির্ধারণ করার চেষ্টা করছে।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: