যুদ্ধ শুরুর পর রোববার রাতে গাজায় প্রচন্ডতম হামলা ইসরায়েলের

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজায় উপত্যকায় টেলিফোন, ইন্টারনেটসহ সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়ে রোববার (৫ নভেম্বর) রাতে তীব্র বোমা হামলা চালিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী।

বিবিসির সাংবাদিক রুশদি আব্দুআলোফ জানিয়েছেন, ৭ অক্টোবর গাজায় হামলা শুরুর পর গত রোববার গাজায় সবচেয়ে প্রচন্ড বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। তিনি জানিয়েছেন, ইসরায়েলি বিমানবাহিনী উত্তর-পশ্চিম গাজা, শাতি ক্যাম্প নামে পরিচিত সমুদ্র সৈকত শরণার্থী শিবিরে সবচেয়ে বেশি বোমা হামলা চালিয়েছে।

এর আগেই গাজায় এ প্রচন্ড বোমা হামলা চালানোর কথা জানিয়েছিলেন ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হ্যাগারি। তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘আমরা প্রচণ্ড শক্তি দিয়ে হামলা চালাচ্ছি। এবং প্রতিদিন। আজ রাতের হামলা ছিল সবচেয়ে প্রচণ্ড।’

আল জাজিরা জানিয়েছে, ধারণা করা হচ্ছে দখলদার ইসরায়েলি সেনারা গাজার প্রাণকেন্দ্র গাজা সিটির ভেতর প্রবেশ করছে। আর সেনারা যেন ট্যাংক নিয়ে কোনো বাধা ছাড়াই গাজা সিটির ভেতর ঢুকতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে বোমা হামলার তীব্রতা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

রোববারের হামলার আগে আবারও গাজায় মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয় দখলদার ইসরায়েল। ফলে গাজায় এখন কি হচ্ছে সে ব্যাপারে কোনো ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না।

এর আগে গত ২৮ অক্টোবর প্রথমবার ট্যাংক ও অন্যান্য সাঁজোয়া যান নিয়ে গাজায় স্থল হামলা শুরু করে ইসরায়েল। সেনারা গাজায় ঢোকার আগ মুহূর্তেও সেই রাতে প্রচন্ড বিমান ও কামান হামলা হয়েছিল  গাজায়। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি

news