ঢাকা, রবিবার, জুলাই ২১, ২০২৪ | ৬ শ্রাবণ ১৪৩১
Logo
logo

মণিপুরে ছিনতাই হওয়া অস্ত্রশস্ত্র জমা দিতে বাক্স বসালেন বিজেপি বিধায়ক


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ১১ জুন, ২০২৩, ০১:০৬ পিএম

মণিপুরে ছিনতাই হওয়া অস্ত্রশস্ত্র জমা দিতে বাক্স বসালেন বিজেপি বিধায়ক

মণিপুরে ছিনতাই হওয়া অস্ত্রশস্ত্র জমা দিতে বাক্স বসালেন বিজেপি বিধায়ক

মণিপুর এখনো শান্ত হয়নি। রাজ্যটির পরিস্থিতি স্থিতিশীল করতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উপস্থিতিও কাজে আসেনি। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, পুরো জুন মাসই সেখানে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন থাকবে। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ এবং নিরাপত্তারক্ষীদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া অস্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য মণিপুরের জনগণকে অনুরোধ জানিয়েছেন পূর্ব ইম্ফলের বিজেপি বিধায়ক সুসিন্দ্র মেইতেই । নিজের বাড়িতে একটি বাক্স বসিয়ে বলেছেন, ওই বাক্সে যারা অস্ত্র ফিরিয়ে দিয়ে যাবেন, তাদের নাম এবং পরিচয় গোপন রাখা হবে। কোথা থেকে কী ভাবে অস্ত্র তাদের হাতে এল, তা নিয়েও কোনও প্রশ্ন করা হবে না।

গত ৩ মে ছাত্র সংগঠন ‘অল ট্রাইবাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন অব মণিপুর’ (এটিএসইউএম)-এর কর্মসূচি ঘিরে অশান্তির সূত্রপাত হয়েছিল মণিপুরে। রাজ্যের হাই কোর্ট মেইতেইদের তফসিলি জাতিগোষ্ঠীর মর্যাদা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে রাজ্য সরকারকে বিবেচনা করার নির্দেশ দিয়েছিল। এর পরেই সংগঠনগুলো তার বিরোধিতায় পথে নামে। আদি বাসিন্দা মেইতেই জনগোষ্ঠীর সঙ্গে কুকি, জড়ো-সহ কয়েকটি তফসিলি সম্প্রদায়ের সংঘর্ষ হিংসার আকার নেয়। সেই সংঘর্ষের আবহে মে মাসের প্রথম দিকে রাজ্যের নানা প্রান্তের থানা থেকে অস্ত্রশস্ত্র ছিনতাই করা হয়েছিল। বহু অস্ত্র লুট হয়ে গিয়েছিল। তার মাধ্যমেই মণিপুরের সহিংসতার মাত্রা বাড়ায়।
তারপর থেকেই মণিপুরের প্রশাসন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংহ এমনকি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও বাসিন্দাদের কাছে অস্ত্র-সহ আত্মসমর্পণের অনুরোধ জানিয়েছিলেন। এ বার বিজেপি বিধায়ককে অস্ত্র ফেরানোর জন্য বাক্স বসাতে দেখা গেল।
বার্তা সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, বিধায়কের বাড়িতে বসানো বাক্সে ইতিমধ্যে বেশ কিছু অস্ত্র জমা পড়েছে। জমা পড়া অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে কিছু স্বয়ংক্রিয় রাইফেল এবং গোলাবারুদও।

মণিপুরের সহিংসতায় এখনও পর্যন্ত প্রাণ গিয়েছে ১০০ জনের। গুরুতর আহতের সংখ্যা প্রায় ৫০০। ঘর ছাড়া হয়েছেন ২৫ হাজারেরও বেশি মানুষ। রাজ্যের পুলিশ, সেনা এবং আধাসেনা এই মুহূর্তে উত্তর-পূর্বের রাজ্যটিতে শান্তি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে। শুক্রবার তারা যৌথ অভিযান চালিয়ে ৩৫টি অস্ত্র উদ্ধার করেছে। আরও অস্ত্র উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

 এনবিএস/ওডে/সি