জাতীয় নাগরিক পঞ্জি’ নিয়ে রাজ্যবাসীকে সতর্ক করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যবাসীকে কেন্দ্রীয় সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী জাতীয় নাগরিক পঞ্জি বা ‘এনআরসি’ নিয়ে সতর্ক করেছেন।

তিনি আজ (বুধবার)কোলকাতার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে রাজ্য সরকারের জমির পাট্টা বিলি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময়ে এ সম্পর্কে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘এনআরসি’র নাম করে যাতে আপনাদের নাম কোথাও কেউ কেটে না দিতে পারে, তাই এখন থেকে নিজে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে নিজের নাম তুলে আসবেন। দেখে আসবেন নামটা আছে কী না। অসমে আপনারা দেখেছিলেন, কত লক্ষ মানুষের নাম কেটে বাদ দিয়েছিল। কত বড় আন্দোলন গড়ে তুলেছিলাম আমরা। ‘এনআরসি’ লজ্জা! ‘এনআরসি’ লজ্জা! আবার একটা পরিকল্পনা শুরু হয়েছে। বাংলার সমস্ত মানুষকে বলছি, নিজেরা নিজেদের স্বার্থে নিজেদের নাম তুলুন। তা না হলে কাল বলে দেবে, আপনার নাগরিক অধিকার নেই। আপনি ডিটেনশন ক্যাম্পে চলে যাবেন- এসব আমরা করতে দেবো না।’        

মমতা কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার ভোটেই তুমি প্রধানমন্ত্রী হলে, এখন আমাকেই তুমি নাগরিক অধিকার দিতে চাচ্ছ! এটা তো অসম্মান করা। যারা এতদিন ধরে এখানে থাকছেন, স্কুল-কলেজে পড়ছেন, কেউ রিকশা চালাচ্ছেন, কেউ চাষ করছেন, তাঁরা সেই অধিকার কোথায় পাচ্ছেন? প্রত্যেকের আধার কার্ড, রেশন কার্ড রয়েছে। ভোটার তালিকায় নাম রয়েছে। তাদের নতুন করে নাগরিক অধিকার দেওয়া মানে তাঁদের অসম্মান করা।’ 

ভোটার তালিকায় নামের বানান ভুল থাকলে তাও সংশোধন করে নিতে বলেছেন মমতা। না হলে অসমের মতো পরিস্থিতি বাংলাতেও তৈরি হতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। মমতা বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে সব কিছু হারিয়ে কত মানুষ এখানে এসেছেন। ১৯৭১ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত যারা এসেছেন, তাদের নিয়ে তো সরকারের চুক্তি রয়েছে। তিনি ভারতেরই নাগরিক। কিন্তু কখনও কখনও ভাঁওতা দেওয়া, তুমি নাগরিক নও। নাগরিক না হলে সে ভোট দিলো কী করে?’   ‘মানুষের জন্য আমি জীবন পর্যন্ত দিতে রাজি আছি। কিন্তু মানুষের সাথে বেঈমানি করে কোনোদিন রাজনীতি করবো না’ বলেও মন্তব্য করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 
খবর পার্সটুডে /এনবিএস/২০২২/একে news