ঢাকা, মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪ | ১০ বৈশাখ ১৪৩১
Logo
logo

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারের চেষ্টা রাশিয়ার


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ১৬ মার্চ, ২০২৩, ০১:০৩ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারের চেষ্টা রাশিয়ার

 যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারের চেষ্টা রাশিয়ার

রাশিয়া জানিয়েছে, তারা কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারের চেষ্টা চালাবে। বিশালাকারের মার্কিন এমকিউ-৯ রিপার নজরদারি ড্রোনটি রুশ জঙ্গী বিমানের সঙ্গে সংঘর্ষে পর মঙ্গলবার কৃষ্ণসাগরে ভেঙ্গে পড়ে ।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, রাশিয়ার জঙ্গি বিমানের ধাক্কায় ড্রোনটি অকেজো হয়ে পড়ায় দূর থেকে এই ড্রোন পরিচালনা করা পাইলটরা এটিকে কৃষ্ণসাগরে ফেলে দিতে বাধ্য হয়। তবে মস্কো ড্রোনটি ধ্বংসের এমন দাবি অস্বীকার করেছে। বুধবার এই ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ খোঁজার চেষ্টার কথা রাষ্ট্রীয় টিভিতে জানিয়েছেন রাশিয়ার সিকিউরিটি কাউন্সিলের সেক্রেটারি নিকোলাই পাত্রুশেভ। রোশিয়া-১ টিভি চ্যানেলে তিনি বলেন, “এটি আমরা উদ্ধার করতে পারব কিনা তা আমি জানি না। কিন্তু একাজ করতেই হবে। আমরা অবশ্যই এটা করব।”

হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রও ড্রোনটির অবস্থান শনাক্ত করতে চায়। তবে তিনি আশঙ্কাও  করেন যে, এটি হয়ত কখনোই উদ্ধার করা সম্ভব হবে না। কিরবি বলেন, রাশিয়া যদি ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারও করে তাহলেও তারা যাতে এটা থেকে খুব বেশি গোয়েন্দা তথ্য না পেতে পারে সেটি নিশ্চিত করতেও যুক্তরাষ্ট্র ব্যবস্থা নিচ্ছে। এবিসি নিউজের আমেরিকা’স মর্নিং নিউজ প্রোগ্রামে কিরবি বলেন, ড্রোনটি অনেক গভীর পানিতে পড়ায় এটি উদ্ধার করা কঠিন এবং চ্যালেঞ্জিং হবে।

ইউক্রেইন যুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও এর পশ্চিমা মিত্রদের সঙ্গে আগে থেকেই রাশিয়ার উত্তেজনাকর পরিস্থিতির বিরাজ করার মধ্যে মার্কিন ড্রোন বিধ্বস্তের এই ঘটনা ঘটল। ড্রোন বিধ্বস্তের ঘটনায় রাশিয়ার সমালোচনা করে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, রুশ যুদ্ধবিমানের কর্মকাণ্ড ছিল বেপরোয়া, অপেশাদার। তবে রাশিয়া এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, মার্কিন ড্রোনটি ইউক্রেইনের জন্য তথ্য সংগ্রহের উদ্দেশ্যে ওই এলাকায় নজরদারি করছিল।

বুধবার মস্কোর পক্ষ থেকে বলা হয়, ড্রোনটি আকাশে বেশ কয়েকবার ‘তীক্ষ্ণ মোড়’ নেয়ার পর বিধ্বস্ত হয়। ওয়াশিংটনে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনভ বলেন, ‘‘যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনটি ইচ্ছা করে উস্কানিমূলকভাবে রাশিয়ার আকাশসীমায় উড়ানো হয়েছিল।”

এনবিএস/ওডে/সি