ঢাকা, শুক্রবার, জুন ১৪, ২০২৪ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
Logo
logo

একাধিক বিস্ফোরণ প্রকম্পিত ক্রিমিয়া, কিয়েভে সাইরেন


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ০৭ মে, ২০২৩, ০৫:০৫ পিএম

একাধিক বিস্ফোরণ প্রকম্পিত ক্রিমিয়া, কিয়েভে সাইরেন

একাধিক বিস্ফোরণ প্রকম্পিত ক্রিমিয়া, কিয়েভে সাইরেন

রাশিয়ার সঙ্গে সংযুক্ত করে নেয়া ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ একাধিক বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে আজ রোববার( ৭ এপ্রিল)। একজন মস্কোপন্থী কর্মকর্তা বলেছেন, ক্রিমিয়ায় দশটিরও বেশি ড্রোন হামলা হয়েছে। তিনি এ জন্য ইউক্রেনকে দোষারোপ করেছেন। এদিকে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ দেশটির অধিকাংশ অঞ্চলে বিমান বা ক্ষেপনাস্ত্র হামলার সতর্কতা সাইরেন বাজতে শোনা গেছে। 

রুশ কর্মকর্তা ও স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে যে, রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এসব ড্রোন হামলা প্রতিহত করেছে। এছাড়া ক্রিমিয়ার বন্দর শহর সেভাস্তোপলে অন্তত তিনটি ড্রোন ভূপাতিত করা হয়েছে।

টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে সেভাস্তোপলের মস্কো-ইনস্টল করা গভর্নর মিখাইল রাজভোজায়েভ বলেছেন, (সেভাস্তোপলে) কোনো স্থাপনা বা ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। ২০১৪ সালে রাশিয়া ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল ও নিজের সঙ্গে সংযুক্ত করে নেয়। 

রাশিয়ার আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর সাথে যুক্ত একটি টেলিগ্রাম চ্যানেল রোববার সকালে জানায় যে, ক্রিমিয়াতে দফায় দফায় হামলায় কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। কিয়েভ তাৎক্ষণিকভাবে এ হামলা সম্পর্কে  কোনো মন্তব্য করেনি।

এদিকে ইউক্রেনের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ জুড়ে আজ সকালের প্রথম কয়েক ঘন্টা বিমান হামলার সতর্কতা ছড়িয়ে পড়ে। কর্মকর্তারা বলেছেন যে, বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিয়েভের আকাশসীমার বেশ কয়েকটি ড্রোনকে গুলি করে ভূপাতিত করেছে।

কিভের সামরিক প্রশাসন টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে বলেছে, 'শেষ সতর্কতা সাইরেন বাজার সময় কিয়েভের আকাশসীমায় একটি শত্রু একটি ড্রোন শনাক্ত করা হয়। ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি অঞ্চলের স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে,তাদের অঞ্চলে বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছিল আগের দিন। হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতির কোন খবর তাৎক্ষণিক তথ্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে জাতিসংঘের পরমাণু প্রধান রাশিয়ান-নিয়ন্ত্রিত জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রের চারপাশে 'বিপজ্জনক' পরিস্থিতির বিষয়ে সতর্ক করেছেন। এদিকে আধাসামরিক বাহিনী ওয়েগনার প্রধান ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের যুদ্ধরত বাখমুতের রণাঙ্গনে তাদের সেনাদের  সরিয়ে সেখানে চেচেন যোদ্ধাদের মোতায়েন করতে মস্কোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

এনবিএস/ওডে/সি