ঢাকা, বুধবার, জুলাই ২৪, ২০২৪ | ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
Logo
logo

আগামীকাল রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস, গৌরব ও সাফল্যের ৭ম বছর


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ২৫ জুলাই, ২০২৩, ১১:০৭ পিএম

আগামীকাল রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস, গৌরব ও সাফল্যের ৭ম বছর

আগামীকাল রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস, গৌরব ও সাফল্যের ৭ম বছর

আগামীকাল (২৬ জুলাই) ৭ম রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস। ২০১৭ সালের এইদিনে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাসের মাধ্যমে সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুরে দেশের ৪০তম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

উচ্চশিক্ষায় সৃজনশীলতা উদ্ভাবনের রূপকল্প এবং মানসম্মত শিক্ষা, গবেষণা, সৃজনশীলতা উদ্ভবনের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরি ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণের অভিলক্ষে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়টি ৭ম বর্ষ শেষ করে ৮ম বর্ষে পা দিচ্ছে। প্রতিষ্ঠার ৭ম বছরে বিশ্ববিদ্যালয়টি দেশের গণ্ডি পেরিয়ে আজ বিশ্বের প্রশংসা কুড়াচ্ছে। শিক্ষা, গবেষণা ও সংস্কৃতিতে অনবদ্য অবদান রাখার জন্য দেশের মধ্যে একমাত্র সাংস্কৃতিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে পরিচিতি অর্জন করেছে।

২০২৩ সালের ওয়েবম্যাট্রিক্স র‍্যাংকিং অনুসারে গত ১০ বছরে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ২য় অবস্থানে ও ২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী আবেদনে নবীন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ভর্তিচ্ছুদের পছন্দের শীর্ষে অবস্থান এবং মফস্বল শহরে (শাহজাদপুর) জিএসটি ভর্তি পরীক্ষা কৃতিত্বের সাথে গ্রহণ করার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়।

দেশি, বিদেশী প্রখ্যাত ব্যক্তিদের ভ্রমণ নবীন এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে আরেকধাপ এগিয়ে নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রথম আয়োজনকৃত 'দ্য আর্ট এন্ড সোস্যাল চেঞ্জেস্' শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বিভিন্ন দেশের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকের আগমন বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বপরিমন্ডলে নতুন করে পরিচিতি অর্জন করিয়েছে।

গবেষণার ক্ষেত্রে পুরো দেশের সেরা গবেষকদের মধ্যে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. শাহ্ আজমের নাম ইতোমধ্যে এডি সাইন্টিফিক ইনডেক্সে স্থান পেয়েছে। এছাড়াও মোট ২৫জন শিক্ষকের মধ্যে সকলেই নিজ ক্ষেত্রে গবেষণায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর অব্যাহত রেখেছেন এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য নিয়মিত নানা কর্মশালার আয়োজন করা হচ্ছে।

শিক্ষার্থীদের সহশিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটি, ইকোনমিক্স এক্সিলেন্সি সেন্টার, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, টেগরস থিয়েটার, ক্যারিয়ার ক্লাব, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি), মিনি পার্লামেন্ট প্রভৃতি ছাত্রসংগঠন প্রতিষ্ঠাসহ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সেমিনার, প্রত্নতত্ত্ব অনুসন্ধান, বইমেলা, শিক্ষাসফরসহ প্রভৃতি কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের শারীরিক, মানসিক বিকাশ সাধনে কাজ করা হচ্ছে। এছাড়াও চতুর্থ শিল্পবিপ্লব মোকাবেলা, স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আধুনিক প্রযুক্তিতে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কাজ করছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়।

বিশ্ববিদ্যালয়টি শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ ভাবনায় দুটি বিভাগের নাম পরিবর্তন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার সম্প্রসারণ, কম্পিউটার ল্যাব সুবিধা এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ও ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সহিত দুটি সমঝোতা স্মারকচুক্তি করে।

এছাড়াও জাতীয়, আন্তর্জাতিক দিবস পালনের সঙ্গে সঙ্গে বৈশ্বিক উষ্ণয়ন, প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলায় নানা ধরনের পরিকল্পনা এবং উচ্চতর রবীন্দ্র গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি