ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০২৪ | ৩০ চৈত্র ১৪৩০
Logo
logo

আলোর উৎসবের পরেই আঁধারে আকাশ! চাঁদের ছায়া অর্ধেক ঢাকে সূর্যকে, কেন হয় খণ্ডগ্রাস গ্রহণ


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ০৬:১০ পিএম

আলোর উৎসবের পরেই আঁধারে আকাশ! চাঁদের ছায়া অর্ধেক ঢাকে সূর্যকে, কেন হয় খণ্ডগ্রাস গ্রহণ

আলোর উৎসবের পরেই আঁধারে আকাশ! চাঁদের ছায়া অর্ধেক ঢাকে সূর্যকে, কেন হয় খণ্ডগ্রাস গ্রহণ


 আজ মঙ্গলবার খণ্ডগ্রাস সূর্যগ্রহণ (Partial Solar Eclipse)। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই দেখা যাবে। কলকাতায় দেখা যাবে সূর্যাস্তের আগে বিকেলে মাত্র ১২ মিনিট। ২৭ বছর আগে, ১৯৯৫ সালে কালীপুজোর পর দিন পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ দেখা গিয়েছিল। আর এ বছরের শেষ সূর্যগ্রহণ হতে চলেছে আজ। চাঁদের ছায়ায় আংশিকভাবে ঢেকে যাবে সূর্য।
প্রতি মাসেই অমাবস্যার চাঁদ পৃথিবী আর সূর্যের মধ্যে থাকে। ফলে, চাঁদের এক পিঠে যখন সূর্যের আলো পড়ে তখন পৃথিবীর দিকে থাকা চাঁদের অন্য পিঠে সেই আলো পৌঁছয় না (Partial Solar Eclipse)। তাই পৃথিবী থেকে দেখা যায় না অমাবস্যার চাঁদ। প্রদক্ষিণ করে সেই চাঁদ পৃথিবীর অন্য দিকে গেলে তা পূর্ণিমার চাঁদ হয়ে ওঠে। পৃথিবীর সেই দিকে তখন সূর্যের আলো পৌঁছয় না।

চাঁদ সূর্যকে পুরোপুরি ঢেকে দিতে পারলে হয় পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ। না পারলে হয় আংশিক সূর্যগ্রহণ বা সূর্যের বলয়গ্রাস। কিন্তু চাঁদ তার কক্ষপথে একটু ঝুঁকে থাকে বলে অমাবস্যার চাঁদ সব সময়েই সূর্যের মুখ পুরোপুরি বা আংশিক ভাবে ঢেকে দিতে পারে না। তাই অমাবস্যায় সাধারণত আমরা চাঁদ দেখতে পাই না। বছরে সূর্যগ্রহণ হয় বড়জোর দুই থেকে তিনটি। সর্বাধিক হতে পারে পাঁচটি। যেমন শেষবার হয়েছিল ১৯৩৫ সালে। 
আজ খণ্ডগ্রাস সূর্যগ্রহণ, চাঁদের ছায়ায় আংশিক ঢাকা পড়বে সূর্য, কলকাতা থেকে কখন দেখা যাবে? 

চাঁদের ছায়ার দু’টি অংশ থাকে। একটি ঘন কালো। তাকে বলা হয়, ‘আমব্রা’। সূর্যগ্রহণের সময় পৃথিবীর যে যে এলাকা ‘আমব্রা’র মধ্যে পড়ে, সেখান থেকে সূর্যের পূর্ণগ্রাস দেখা যায়। ছায়ার আর একটি অংশের নাম ‘পেনাম্ব্রা’। ঘন কালো ‘আমব্রা’র পাশেই থাকে। সূর্যগ্রহণের সময় পৃথিবীর যে যে এলাকা ‘পেনাম্ব্রা’র মধ্যে পড়ে, সেখান থেকে সূর্যের আংশিক গ্রহণ দেখা যায়। আর  কক্ষপথে প্রদক্ষিণের সময় চাঁদ যখন এমন একটা দূরত্বে চলে যায়, যাতে তার ছায়া সূর্যকে ঢেকে দিতে পারে না পুরোপুরি, তখনই হয় সূর্যের বলয়গ্রাস। যখন চাঁদ সূর্যের মাঝখানটাকে চাকতির মতো ঢেকে দেয়। তার পরে সেই চাকতির চার পাশ থেকে বেরিয়ে আসতে দেখা যায় সূর্যের আলো। অনেকটা আংটির মতো। একেই বলে সূর্যের বলয়গ্রাস গ্রহণ। চাঁদ পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে উপবৃত্তাকার কক্ষপথে। পৃথিবীর দিকে ৫ ডিগ্রি কোণে হেলে থেকে। তাই পূর্ণগ্রাস, আংশিক গ্রাস ও বলয়গ্রাস মিলিয়ে বছরে ৫টির বেশি সূর্যগ্রহণ হওয়া সম্ভব নয়।


খবর দ্য ‍ওয়ালের /এনবিএস/২০২২/এক