ঢাকা, শনিবার, মার্চ ২, ২০২৪ | ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০
Logo
logo

কোলকাতায় বিজেপির মহামিছিল থেকে বাংলার তৃণমূল সরকারকে হঠানোর ডাক   


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ২১ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:১১ পিএম

কোলকাতায় বিজেপির মহামিছিল থেকে বাংলার তৃণমূল সরকারকে হঠানোর ডাক   

কোলকাতায় বিজেপির মহামিছিল থেকে বাংলার তৃণমূল সরকারকে হঠানোর ডাক   

ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদি মুর্মুর বিরুদ্ধে অসম্মানজনক মন্তব্যের প্রতিবাদ ও অন্যান্য ইস্যুতে ভারতীয় জনতা মহিলা মোর্চার ডাকে কোলকাতায় বিজেপির মহামিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।    

আজ সোমবার) বিজেপির ওই মহামিছিল থেকে রাজ্যে মহিলাদের ধর্ষণ ও চাকরি দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হন প্রতিবাদকারীরা। এ সময়ে তারা ‘মহিলা মোর্চা রাস্তায়, তৃণমূল হুঁশিয়ার’, ‘চাকরি চুরির সরকার, আর নেই দরকার’ ‘কয়লা চুরির সরকার, তোলাবাজের সরকার, আর নেই দরকার’, ‘পিসি চোর-ভাইপো  চোর, তৃণমূলের সবাই চোর’, ‘ওয়ান-টু-থ্রি-ফোর, তৃণমূলের সবাই চোর’ ইত্যাদি স্লোগান দেন।   

আজ বিজেপির ওই মিছিল কলেজ স্ট্রিট থেকে শুরু হয়ে রানি রাসমণি অ্যাভিনিউ পর্যন্ত যায়। রাষ্ট্রপতিকে নিয়ে রাজ্যের মন্ত্রী অখিল গিরি সম্প্রতি যে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন, সেজন্য আজ তাকে বরখাস্ত করার দাবি জানানো হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় ও অন্যান্য নেতা-নেত্রীরা।   

আজকের প্রতিবাদ মিছিলে রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী তার বক্তব্যে বলেন, ‘রাজ্য থেকে তৃণমূলকে হটাতে হবে।  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে তিনি ‘চোরেদের রাণী’ বলে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের সবাইকে একসঙ্গে লড়তে হবে। দ্রৌপদি মুর্মু মহোদয়ার অপমান,  গোটা রাজ্যজুড়ে নারী নির্যাতন, নারীদের উপরে অত্যাচার, এবং ‘লাভ জিহাদ’-এর বিরুদ্ধে যোগী আদিত্যনাথজী (উত্তরপ্রদেশের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী) যা করেছেন, আগামী দিনে এই বাংলায় তা করে বাংলাকে রক্ষা করতে হবে। জাতীয়তাবাদকে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। রাজ্যে ‘ডাবল ইঞ্জিন সরকার’ (কেন্দ্র ও রাজ্যে বিজেপি  সরকার) তৈরি করতে হবে। এবং নারী বিরোধী, মহিলা বিরোধী, তোলামূল (তৃণমূল) পার্টি, দুর্নীতিগ্রস্ত পার্টির এজেন্ডা হল পরিবারবাদ, তোষণ এবং চলো  মাল কামাই’ বলেও তীব্র কটাক্ষ করেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।  

এদিকে, আজ রাজ্যের মন্ত্রী ও কোলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম রাষ্ট্রপতি সম্পর্কে বলেন, ‘দ্রৌপদী মুর্মু ভারতের রাষ্ট্রপতি, বিজেপির নয়।’ আমরা ওঁকে সম্মান করি, আমরা ওঁকে নিয়ে গর্বিত’ বলেও মন্তব্য করেন ফিরহাদ হাকিম। 
খবর পার্সটুডে/এনবিএস/২০২২/একে