ঢাকা, বুধবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
Logo
logo

রাশিয়ায় সমকামী-বিরোধী আইনের সমালোচনায় আমেরিকা; হস্তক্ষেপ বলছে মস্কো


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ২৬ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:১১ পিএম

রাশিয়ায় সমকামী-বিরোধী আইনের সমালোচনায় আমেরিকা; হস্তক্ষেপ বলছে মস্কো

রাশিয়ায় সমকামী-বিরোধী আইনের সমালোচনায় আমেরিকা; হস্তক্ষেপ বলছে মস্কো

সমকামিতা নিষিদ্ধ করে রাশিয়ার জাতীয় সংসদ সম্প্রতি যে আইন পাস করেছে তার সমালোচনা করে মার্কিন কর্মকর্তারা যেভাবে বিবৃতি দিয়েছেন তাকে অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ বলে উল্লেখ করেছে মস্কো।

আমেরিকায় রাশিয়ার দূতাবাস গতকাল (শুক্রবার) এক বিবৃতিতে রাশিয়ার জনগণের দৃষ্টিভঙ্গি ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মার্কিন কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানায়। দূতাবাসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমেরিকার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা সমকামিতা নিষিদ্ধ করার বিলের সমালোচনা করেছে যা গত বৃহস্পতিবার রাশিয়ার জাতীয় সংসদে পাস হয়। আমরা এই ধরনের বিবৃতিকে আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মারাত্মক হস্তক্ষেপ বলে গণ্য করি।

”বিবৃতিতে সুস্পষ্ট করে বলা হয়েছে, প্রথাগত পারিবারিক মূল্যবোধ রক্ষার বিষয়ে রাশিয়ার অবস্থান অত্যন্ত শক্ত এবং মার্কিন নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা দেশগুলোর কথিত উদার ও অন্য দেশগুলোর মানবাধিকার নিয়ে বিকৃত চিন্তা প্রত্যাখ্যান করে।

রাশিয়ার জনগণের নৈতিক দিকনির্দেশনা যা বহু প্রজন্ম ধরে চলে আসছে এবং রাশিয়ার সভ্য পরিচয়ের ভিত্তি হিসেবে কাজ করছে তার প্রতি সম্মান জানাতে মার্কিন কর্মকর্তাদের আহ্বান জানিয়েছে রুশ দূতাবাস।

বৃহস্পতিবার রাশিয়ার জাতীয় সংসদ দুমা সমকামী প্রচারণা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করে একটি বিল পাস করা হয়েছে। ‘প্রথাগত মূল্যবোধ রক্ষা’ নামক এই বিলের প্রতি রাশিয়ার ৩৯৭ জন সংসদ সদস্য সমর্থন জানিয়েছেন। এই বিল পাস হওয়ার কারণে এখন রাশিয়ায় প্রথাগত যৌন সম্পর্কের বাইরে সমকামিতাকে উৎসাহিত করা যাবে না এবং এর পক্ষে কোনো ধরনের বিজ্ঞাপন, বই-পুস্তক প্রকাশ, সিনেমা তৈরি এবং গণমাধ্যম কার্যক্রম চলতে পারবে না।

কোনো ব্যক্তি এই আইন অমান্য করলে তাকে ছয় হাজার ৬০০ ডলার পর্যন্ত জরিমানার মুখে পড়তে হবে। কোনো প্রতিষ্ঠান হতে সমকামিতার পক্ষে প্রচারণা চালালে সেই প্রতিষ্ঠানকে ৮৩ হাজার ডলার জরিমানা গুণতে হবে। যে সমস্ত বিদেশী এই আইন মানতে পারবে না তাদেরকে রাশিয়া থেকে বহিষ্কার করা হবে।

বিলটি এখনো আইনে পরিণত হয়নি, তবে আশা করা হচ্ছে শিগগিরই প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এতে সই করবেন এবং তখন থেকে এটি আইনে পরিণত হবে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন এই বিলকে মত প্রকাশ এবং মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছেন।
খবর পার্সটুডে/এনবিএস/২০২২/একে