ঢাকা, বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪ | ৫ আষাঢ় ১৪৩১
Logo
logo

 পেলেকে সমাহিত করা হবে মঙ্গলবার


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ০২ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৩:০১ পিএম

 পেলেকে সমাহিত করা হবে মঙ্গলবার

 পেলেকে সমাহিত করা হবে মঙ্গলবার

ব্রাজিলের সান্তোসে মেমোরিয়াল নেক্রোপোল একুমেনিয়া নামে ১৪ তলা বিশিষ্ট ভোল্টের কবরস্থানে প্রয়াত ফুটবল কিংবদন্তি পেলের মরদেহ সমাহিত করা হবে আজ। এর আগে তার প্রাণের ক্লাব সান্তোসের ভিলা বেলমিরো স্টেডিয়ামের মধ্যমাঠে, বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় হবে শেষকৃত্য অনুষ্ঠান।

নতুন বছর উদযাপনেও পেলেকে স্মরণ করেছে ব্রাজিল। সান্তোসের গনজাগা সৈকতে ৮০টি ড্রোনের সমন্বয়ে পেলের ছায়াসহ বিভিন্ন আকৃতি তৈরি করে নতুন বছর বরণ করে ব্রাজিলিয়ানরা। একই সঙ্গে লুই ইনাসিও লুলা দা সিলভা ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের শুরুতে কিংবদন্তি পেলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

পেলের ইচ্ছানুযায়ী, সোমবার সকালে পেলের কফিন নিয়ে যাওয়া হয় সান্তোস ক্লাব প্রাঙ্গণে। এর আগে রীতি অনুযায়ী, সমাহিতের জন্য মরদেহ প্রস্তুত করা হয় আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে। জনসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য স্টেডিয়ামের মাঝমাঠে ২৪ ঘণ্টা রাখা হয় কফিন।

মঙ্গলবার সকালে পেলের মরদেহ নিয়ে ‘শেষযাত্রা’ হবে সান্তোসের রাস্তায়। কফিন নিয়ে যাওয়া হবে ক্যানাল ৬ সড়ক দিয়ে, যেখানে পেলের মা থাকেন। ১০০ বছর বয়সী পেলের মা শয্যাশায়ী।

অন্তিমযাত্রা শেষে মেমোরিয়াল নেকরোপোল একিউমেনিকা নামের সমাধিস্থলে পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে পেলেকে সমাহিত করা হবে। সমাধিস্থলটি মূলত ১৪ তলা ভবন। সেখানে আছে ১৪ হাজার ভল্ট, একটি কৃত্রিম জলপ্রপাত ও একটি কার জাদুঘর। সমাহিত করার অনুষ্ঠানে জনসাধারণের প্রবেশাধিকার থাকবে না।

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের তথ্যানুযায়ী, মেমোরিয়াল নেক্রোপোল একুমেনিয়া বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু উল্লম্ব সমাধিস্থল। সেখানে ১৪ হাজার ভল্ট ছাড়া ভবনের নিচতলার নিচে আছে পাথরের তৈরি ভল্টের মতো একাধিক স্থান। রয়েছে শেষকৃত্যানুষ্ঠান করার কক্ষ, একটি শবদাহের স্থান ও একটি সমাধিস্তম্ভ। মূলত যেসব ব্যক্তির পরিবার তাঁদের স্বজনের মৃতদেহ আরো ব্যক্তিগত ও বিশেষভাবে সংরক্ষণ করে রাখতে চান, তাঁদের জন্যই এই সমাধিস্তম্ভ তৈরি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ক্যানসার আক্রান্ত ব্রাজিলের কিংবদন্তি এই ফুটবলার শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো। পেলে ১৯৪০ সালে সান্তোসের উত্তর-পূর্বের মিনাস গেরাইসের একটি শহর ট্রেস কোরাসেস-এ জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ছোট একটি ক্লাবের খেলোয়াড় ছিলেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সে পেলের আত্মপ্রকাশ ঘটে ফুটবল অঙ্গনে। এর পরের ইতিহাস সবারই জানা।

এনবিএস/ওডে/সি