ঢাকা, সোমবার, মে ২০, ২০২৪ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
Logo
logo

অর্থনীতির মূল সূচকগুলোতে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি ইতিবাচক: বিশ্ব ব্যাংক


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ২৮ জানুয়ারী, ২০২৩, ১০:০১ পিএম

অর্থনীতির মূল সূচকগুলোতে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি ইতিবাচক: বিশ্ব ব্যাংক

অর্থনীতির মূল সূচকগুলোতে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি ইতিবাচক: বিশ্ব ব্যাংক

অর্থনীতির মূল সূচকগুলোতে তালেবান শাসনে থাকা আফগানিস্তানের পরিস্থিতিকে ইতিবাচক বলে বর্ণনা করেছে বিশ্ব ব্যাংক।

এটি তার সর্বসাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলেছে, ২০২২ সালে মূল্যস্ফীতি হ্রাস, জাতীয় মূদ্রামান স্থিতিশীল রাখা এবং রাজস্ব সংগ্রহে তালেবান সরকার যথেষ্ট সাফল্যের পরিচয় দিয়েছে।

২০২১ সালের ‌১৫ আগস্ট তালেবানের হাতে কাবুলের পতন ঘটার পর থেকে দেশটির অর্থনৈতিক পরিস্থিতি গভীর পর্যবেক্ষণে রেখেছিল বিশ্ব ব্যাংক। শুক্রবার প্রকাশিত এটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিগত বছরের দ্বিতীয়ার্ধে আফগানিস্তানে মূল্যস্ফীতি হ্রাসের প্রবণতা অব্যাহত ছিল। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২২ সালের জুন মাসে মূল্যস্ফীতি ১৮.৩ শতাংশ থাকলেও নভেম্বরে তা ৯.১ শতাংশে নেমে আসে।

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদনে আফগানিস্তানের অর্থনীতির ইতিবাচক অপর যে বিষয়টি উঠে আসে তা হচ্ছে দেশটির জাতীয় মূদ্রার মান। প্রায় সারা বছর ধরে মার্কিন ডলারের বিপরীতে আফগানিস্তানের জাতীয় মূদ্রা ‘আফগানি’র মান ৮৭ থেকে ৮৯ এককের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল।

বর্তমানে প্রতি সপ্তাহে মানবিক সাহায্য হিসেবে আফগানিস্তানে প্রায় চার কোটি ডলার প্রবেশ করে এবং দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই অর্থ দিয়ে ‘আফগানি’র মান ধরে রাখার চেষ্টা চালায়।জাতিসংঘের মাধ্যমে পাওয়া মানবিক সাহায্যের এই অর্থ তালেবান সরকারের হাত শক্তিশালী করছে বলে আশরাফ গনির নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকারের কোনো কোনো কর্মকর্তা দাবি করেছেন।

তালেবান মুখপাত্র জবিহউল্লাহ মুজাহিদ এক টুইটার বার্তায় বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদনকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, এর মাধ্যমে তাদের নেতৃত্বে আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক উন্নতির আভাস পাওয়া গেছে। তিনি অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকে সাবেক আফগান সরকারের সঙ্গে বর্তমান তালেবান সরকারের তুলনাও করেছেন।

বিশ্ব ব্যাংক তার প্রতিবেদনে আরো বলেছে, তালেবান সরকার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন-ভাতা নিয়মিত পরিশোধ করে যাচ্ছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ২০২২ সালের ২২ মার্চ থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তালেবান সরকার ১৩,৫৯০ কোটি আফগানি (১৫৪ কোটি  ডলার) রাজস্ব আদায় করেছে। বিশ্বব্যাংক বলেছে, তালেবান সরকার ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত সময়ের মধ্যে ১৭০ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে। অথচ তালেবান ক্ষমতায় আসার আগে ২০২০ ও ২০২১ সালে রপ্তানির এই পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ৯০ কোটি ও ৮০ কোটি ডলার। আশরাফ গনির নেতৃত্বাধীন সরকার দুর্নীতির দায়ে ব্যাপকভাবে অভিযুক্ত ছিল।
খরব পার্সটুডে/এনবিএস/২০২৩/একে