ইরান ও বেলজিয়ামের মধ্যে বন্দি বিনিময় চুক্তি কার্যকর

সম্প্রতি ওমানের সহায়তায় একটি চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে ইরানি কূটনীতিক আসাদুল্লাহ আসাদি এবং বেলজিয়ামের সাহায্য কর্মী অলিভিয়ার ভান্দেকাস্টিলেকে কারামুক্তি দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমিরাবদুল্লাহিয়ান এবং বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার ডি ক্রু জানিয়েছেন, মুক্তি পাওয়া দুইজনই ইতোমধ্যে দেশে ফেরার পথে।

এর আগে, ওমানি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, মুক্তি পাওয়া ব্যক্তিদের তাদের নিজ নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার প্রস্তুতির জন্য ব্রাসেলস এবং তেহরান থেকে রাজধানী মাস্কাটে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। আসাদির মুক্তি নিশ্চিত করার জন্য ওমানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমিরাবদুল্লাহিয়ান। তিনি টুইটারে লিখেছেন, আমাদের দেশের নির্দোষ কূটনীতিক, যিনি আন্তর্জাতিক আইনের অধীনে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে জার্মানি এবং বেলজিয়ামে অবৈধভাবে আটক ছিলেন, তিনি এখন স্বদেশে ফিরে যাচ্ছেন।

গত জানুয়ারি মাসে, ইরান একটি বন্ধ দরজার বিচারে গুপ্তচরবৃত্তির জন্য দোষী সাব্যস্ত করার পর বেলজিয়ামের সাহায্য কর্মী ভ্যানডেকাস্টিলকে ৪০ বছরের কারাদণ্ড এবং ৭৪টি বেত্রাঘাতের শাস্তি দিয়েছিল। এছাড়া তাকে ১ মিলিয়ন ডলার জরিমানাও করা হয়েছিল। অসহনীয় পরিস্থিতিতে তিনি তেহরানের কারাগারে ৪৫৫ দিন কাটিয়েছেন। ভ্যানডেকাস্টিল অনেক মানবিক সংস্থার জন্য কাজ করেছেন। বেলজিয়াম সরকার এবং তার পরিবার কঠোরভাবে ইরানের দাবি অস্বীকার করেছে।

২০২১ সালে, বেলজিয়াম সরকার আসাদিকে ফ্রান্সে নির্বাসিত ইরানবিরোধী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে একটি ব্যর্থ বোমা হামলার পরিকল্পনা করার জন্য দোষী সাব্যস্ত করেছিল। এ কারণে আদালত তাকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়। বেলজিয়ামের গোয়েন্দারা তাকে ইরানের গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা হিসেবে চিহ্নিত করেছে, যিনি অস্ট্রিয়ায় ইরানি দূতাবাসে গোপনে কাজ করতেন। কিন্তু তারা এ কাজে আসাদির জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

এনবিএস/ওডে/সি

news