ইউক্রেনে আমাদের লক্ষ্যবস্তুর সংখ্যা বাড়বে: পুতিনের হুঁশিয়ারি

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনের হাতে দূরপাল্লার অস্ত্র তুলে দিলে রাশিয়ার সেনাবাহিনী ইউক্রেনে তাদের লক্ষ্যবস্তুর সংখ্যা বাড়াবে।কয়েক সপ্তাহ বিরতির পর গতকাল (রোববার) ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে নতুন করে হামলা চালিয়েছে রুশ সেনাবাহিনী। আর ওই হামলার কয়েক ঘণ্টা পর এ হুঁশিয়ারি দিলেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।

রুশ বার্তা সংস্থাগুলো বলছে, পুতিন বোঝাতে চেয়েছেন, ‘কিয়েভকে যদি দূরপাল্লার অস্ত্র দেওয়া হয়, তবে আমরা উপযুক্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হব এবং আমাদের অস্ত্র ব্যবহার করব। এমন লক্ষ্যে আঘাত হানব, যেখানে আমরা আগে আঘাত করিনি।”

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, কিয়েভকে অত্যাধুনিক রকেট–ব্যবস্থা সরবরাহ করা হবে।

রাশিয়া বলেছে, কিয়েভে ইউরোপীয় দেশগুলোর সরবরাহ করা ট্যাংকে হামলা চলানো হয়েছে যদিও ইউক্রেন দাবি করেছে, রুশ জঙ্গিবিমান থেকে একটি ইস্পাত মেরামতের কারখানায় হামলা চালানো হয়েছে। গত বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে রাশিয়া ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দোনবাস অঞ্চল দখলের অভিযান চালাচ্ছে এবং এ সময়ে রাজধানী কিয়েভে রাশিয়ার হামলা ছিল না বললেই চলে।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ বাহিনীর অগ্রাভিযান অব্যাহত থাকায় কয়েকটি পশ্চিমা দেশ কিয়েভকে অত্যাধুনিক অস্ত্র সরবরাহ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে। রাশিয়ার পক্ষ থেকে বারবার বলা হচ্ছে, বিদেশি অস্ত্রগুলোকে হামলার জন্য বৈধ লক্ষ্যবস্তু হিসেবে বিবেচনা করা হবে। রুশ হুমকি উপেক্ষা করে স্পেন ইউক্রেনে বিমানবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ও লেওপার্ড ট্যাংক পাঠাচ্ছে।খবর পার্সটুডে/এনবিএস/২০২২/একে 

news