আমেরিকায় বেড়েই চলেছে বন্দুক সহিংসতা, নতুন করে ৩ হামলায় নিহত ৯

আমেরিকার তিনটি স্থানে শনিবার রাত থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত তিনটি বন্দুক সহিংসতার ঘটনায় অন্তত নয়জন নিহত এবং দুই ডজন মানুষ আহত হয়েছেন। সর্বশেষ এসব গুলির ঘটনার মধ্যদিয়ে মূলত মার্কিন সমাজের ভঙ্গুর নিরাপত্তা ব্যবস্থার ভয়ঙ্কর চিত্র আরো একবার পরিষ্কার হয়েছে।

ফিলাডেলফিয়া শহরে দুই ব্যক্তির মধ্যে ঝগড়ার এক পর্যায়ে বন্দুক সহিংসতা শুরু হয় এবং তারা এত ব্যাপক মাত্রায় গুলিবর্ষণ করে যে, আশেপাশের রেস্টুরেন্ট এবং বারগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে তিন ব্যক্তি নিহত এবং ১২ জন আহত হয়েছেন। নিহতদের দুজন এবং আহতরা সবাই পথচারী জানা গেছে। গুলির ঘটনায় আশপাশে চরম ভীতিকর পরিস্থিতি দেখা দেয় এবং লোকজন জীবন বাঁচানোর জন্য যে যার মত ঊর্ধ্বশ্বাসে পালাতে থাকেন।

একইভাবে টেনেসি অঙ্গরাজ্যের চাট্টানুগা শহরে আরেকটি গণ-গুলিবর্ষণের ঘটনায় তিনজন নিহত এবং ১৪ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে রোববার সকালে মিশিগানের সাগিয়ানাও শহরে আরেকটি গণ-গুলির ঘটনায় তিনজন নিহত এবং দুজন আহত হয়েছেন। সেখানে হতাহতদের পাঁচজনই গোলাগুলিতে জড়িত হয়েছিলেন।

বাফেলো শহরের একটি শপিংমলে গুলি বর্ষণের ঘটনায় ১২ জন নিহত এবং টেক্সাসের ইউভ্যাল্ডি এলিমেন্টারি স্কুল ২১ জন নিহত হওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই এই সমস্ত বন্দুক সহিংসতা এবং হতাহতের ঘটনা ঘটলো।

এর মধ্যদিয়ে যেমন মার্কিন সমাজের ভয়াবহ নিরাপত্তাহীনতার চিত্র ফুটে উঠেছে, তেমনি সেই সমাজের মানুষের অসহিষ্ণুতার চিত্রও পরিষ্কার হয়। পাশাপাশি মার্কিন সমাজে মানবাধিকারের চেয়ে অস্ত্রের অধিকারের ওপর রাজনীতিবিদদের গুরুত্ব দেয়ার বিষয়টিও বিভৎসভাবে ধরা পড়ে।খবর পার্সটুডে/এনবিএস/২০২২/একে

news