মার্কিন বিমানবাহি জাহাজের নরওয়ে সফরে ক্ষুব্ধ রাশিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম বিমানবাহিনী যুদ্ধ জাহাজে ওসলো সফরকে ‘অযৌক্তিক ও ক্ষতিকর’ বলে অভিহিত করেছে রাশিয়া। মস্কো-ওয়াশিংটনের মধ্যে উত্তেজনা চলার মধ্যে ইউএসএস জেরাল্ড আর ফোর্ড দেশটি সফরে গেল।

নরওয়ের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ন্যাটোর শক্তির মহড়া দিতে পরমাণুশক্তি চালিত ৩৩৭ মিটার (১১০৬ ফুট) দীর্ঘ যুদ্ধজাহাজটি প্রথমবারের মতো বুধবার অসলোর ফজর্ড বন্দরে প্রবেশ করে। এটি কয়েকদিন সেখানে অবস্থান করবে। এরপর আর্কটিক সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে রওয়ানা হবে।

ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে তীব্র উত্তেজনার মধ্যে যুদ্ধজাহাজের ব্যাপক প্রচারিত সফর অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নরওয়ের রুশ দূতাবাস এ সফরের নিন্দা করেছে। ন্যাটো সদস্য নরওয়ের সঙ্গে রাশিয়ার স্থল সীমান্ত এবং ব্যারেন্ট সাগরে নৌ সীমান্ত রয়েছে।

ওসলোয় রুশ দূতাবাস ফেসবুক পোস্টে লিখেছে, উত্তরের (আর্কটিক) সামরিক সমাধান অথবা বাইরের হস্তক্ষেপের প্রয়োজনের কোন প্রশ্ন উঠে না।

জেরাল্ড আর ফোর্ড যুদ্ধজাহাজটিতে ৯০টি যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টার উড্ডয়ন করতে পারে। জাহাজটির সফর উপলক্ষে নরওয়ের রাজধানী ও সাগরের বিরাট এলাকায় বিমান উড্ডয়ন নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মার্কিন নৌবাহিনীর প্রকাশিত নরওয়ের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বজর্ন আরিল্ড এক বিবৃতিতে বলেছেন, এটি নরওয়ের নিরাপত্তার বিষয়। ন্যাটোর মাধ্যমে আমরা নরওয়ের নিরাপত্তার গ্যারান্টি প্রদান করছি, যা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতা ও অংশিদারিত্বের চেয়ে কোন অংশে কম নয়।

ডেইলি ব্যারেন্ট জানায়, বিমানবাহি যুদ্ধজাহাজটি আর্কটিক চ্যালেঞ্জ শীর্ষ সামরিক মহড়ায় যোগদিতে রওয়ানা হবে কয়েকদিন পর। ২৯ মে মহড়া শুরু হবে। এতে ১৪টি পশ্চিমা দেশের ১৫০টি যুদ্ধবিমান ও ৩০০০ সৈন্য অংশ নেবে।

এনবিএস/ওডে/সি

news