জি-২০ সম্মেলনের আগেই রাশিয়া সফরে জয়শংকর, বৈঠক হতে পারে পুতিনের সঙ্গেও

সাম্প্রতিককালে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে রাশিয়া। হিরোশিমা-নাগাসাকির ধাঁচে হামলা চালানোর কথা শোনা গিয়েছে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের (Vladimir Putin) মুখে। এহেন পরিস্থিতিতে দু’দিনের রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর (S Jaishankar)। সেখানে রুশ বিদেশমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। পুতিনের সঙ্গে জয়শংকরের বৈঠকের সম্ভাবনাও রয়েছে। আগামী দিনে জি-২০ সম্মেলনে যোগ দেবে ভারত, রাশিয়া, আমেরিকা-সহ নানা দেশ। সেখানে ভারত-রাশিয়া দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে কীরকম অবস্থান নেওয়া হবে, সেই বিষয়ে আলোচনা হবে বিদেশমন্ত্রীর এই সফরে।

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি জানিয়েছেন, “রুশ বিদেশমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের সঙ্গে বৈঠক করবেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী। সামগ্রিকভাবে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়েই এই বৈঠকে আলোচনা করা হবে। সেই সঙ্গে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়গুলি নিয়েও নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করবে দুই দেশ।” রুশ বাণিজ্যমন্ত্রী ডেনিস মান্তুরোভের সঙ্গেও আলাদা ভাবে বৈঠক করবেন জয়শংকর। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, হয়তো পুতিনের সঙ্গেও বৈঠক করতে পারেন জয়শংকর। তবে দুই দেশের তরফে পুতিন-জয়শংকরের বৈঠক নিয়ে কিছু জানানো হয়নি। 


ইউক্রেন যুদ্ধের প্রসঙ্গে বিদেশমন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, বরাবরের মতোই আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যা মিটিয়ে নিতে অনুরোধ করবে ভারত। সাংবাদিক বৈঠকে বাগচি জানিয়ে দেন, “বিদেশমন্ত্রী অবশ্যই ইউক্রেন প্রসঙ্গে আলোচনা করবেন। তবে বৈঠকে কী আলোচনা হতে পারে, তা নিয়ে আগে থেকে কিছু অনুমান করা যায় না।” প্রসঙ্গত, শীতের মুখে আক্রমণের তীব্রতা বাড়িয়েছে রাশিয়া। পরমাণু হামলা চালাতে পারেন পুতিন, এমন আশঙ্কাও তৈরি হয়েছে। ফলে বন্ধু রাষ্ট্র ভারতকে কী বার্তা দেবে রাশিয়া, সেদিকে তাকিয়ে রয়েছে আন্তর্জাতিক মহল।

পরের সপ্তাহেই জি-২০ সম্মেলনে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই সময়ে মোদির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসতে পারেন পুতিন। ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরে এই সম্মেলনেই প্রথম বার মুখোমুখি হবেন পুতিন ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের বরাবর নিরপেক্ষ অবস্থান বজায় রেখেছে নয়াদিল্লি। কিন্তু একই বৈঠকে রাশিয়া ও আমেরিকার রাষ্ট্রপ্রধানদের মুখোমুখি হয়ে কীভাবে নিজের অবস্থান বজায় রাখবে ভারত, সেই কৌশল ঠিক করতেই এই সফর, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 
সংবাদ প্রতিদিন /এনবিএস/২০২২/একে news