সিরিয়ায় শিগগিরই চতুর্থ অবৈধ অভিযান চালানোর ঘোষণা এরদোগানের

সিরিয়ায় অচিরেই চতুর্থ অবৈধ স্থল অভিযান চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। তিনি মঙ্গলবার কৃষ্ণসাগর তীরবর্তী আর্টভিন প্রদেশে এক অনুষ্ঠানে দেয়া ভাষণে এ প্রত্যয় জানান।

গত মে মাসের পর এই প্রথম এরদোগান সিরিয়ায় আগ্রাসন চালানোর এরকম সরাসরি ঘোষণা দিলেন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, “আমরা গত কয়েক দিন ধরে আমাদের যুদ্ধবিমান, কামান ও ড্রোন দিয়ে সন্ত্রাসীদের ওপর আঘাত হেনে যাচ্ছি।” সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে অবস্থানরত কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে তুর্কি সেনাবাহিনী গত কয়েকদিন ধরে যে বিমান হামলা চালিয়ে আসছে তার প্রতি ইঙ্গিত করে এরদোগান একথা বলেন। প্রেসিডেন্ট এরদোগান এরপর সিরিয়ার অভ্যন্তরে স্থল অভিযান চালানোর ঘোষণা দিয়ে বলেন, “আমরা অচিরেই আমাদের ট্যাংক, গোলন্দাজ ইউনিট ও সেনাদের পাঠিয়ে তাদের মূলোৎপাটন করব।”

২০১৬ সাল থেকে তুর্কি সেনাবাহিনী সিরিয়ার অভ্যন্তরে কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে তিনটি অবৈধ অভিযান চালিয়েছে। মূলত পিপলস প্রোটেকশন ইউনিট বা ওয়াইপিজি’র গেরিলাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর অজুহাতে সিরিয়ায় আগ্রাসন চালায় তুর্কি বাহিনী। আঙ্কারা দাবি করছে, গত কয়েক দশক ধরে কুর্দিদের জন্য একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে সশস্ত্র লড়াইরত কুর্দি বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী পিকেকের সঙ্গে ওয়াইপিজি’র সম্পর্ক রয়েছে।

সম্প্রতি তুরস্কের বৃহত্তম শহর ইস্তাম্বুলে এক বোমা হামলায় অন্তত ছয়জন নিহত ও ৮১ জন আহত হয়। ওই হামলার পরপরই সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে বিমান হামলা জোরদার করে তুরস্ক। আঙ্কারা সরকার ওই হামলার জন্য পিকেকে’কে দায়ী করেছে।
খবর পার্সটুডে /এনবিএস/২০২২/একে news