স্বাধীনতা দিবসের আগে কাশ্মীরে জেহাদি কার্যকলাপ অব্যাহত, এবার গ্রেনেডে প্রাণ গেল পুলিশকর্মীর

 স্বাধীনতা দিবসের আগে কাশ্মীরে (Kashmir Police) অব্যাহত জেহাদি কার্যকলাপ। এবার জঙ্গি হামলায় প্রাণ গেল এক পুলিশকর্মীর। এই নিয়ে গত কয়েকদিনে জেহাদিদের গুলিতে প্রাণ গেল ৪ জন নিরাপত্তারক্ষী এবং এক পরিযায়ী শ্রমিকের। যা স্বাধীনতা দিবসের আগে চিন্তায় রাখছে নিরাপত্তারক্ষীদের।


কাশ্মীর পুলিশ সূত্রের খবর, শনিবার গভীর রাতে কুলগামের কায়মোহা এলাকায় জঙ্গি হামলাটি ঘটে। টহলদারি চলাকালীন পুলিশকর্মীকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড ছোঁড়ে জেহাদিরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাহির খান নামের ওই পুলিশ কর্মীকে ভরতি করা হয় হাসপাতালে। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগে শনিবার রাতেই শ্রীনগরে টহলরত CRPF জওয়ানকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড ছোঁড়ে জেহাদিরা। ওই সিআরপিএফ কর্মীও আহত।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাজৌরি টাউন থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দূরে সেনাবাহিনীর (Indian Army) একটি ঘাঁটিতে আত্মঘাতী হামলা চালায় সন্ত্রাসবাদীরা। আচমকা সেনা শিবিরে ঢুকে প্রচণ্ড গুলিবর্ষণ শুরু করে জঙ্গিরা। পালটা জবাব দেন জওয়ানরা। সেনা সূত্রে খবর, বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলা লড়াইয়ের পর শহিদ হন তিন জওয়ান। সেনার পালটা গুলিতে দুই আত্মঘাতী জঙ্গি নিহত হয়। সেনা সূত্রের খবর, সুবেদার রাজেন্দ্র প্রসাদ এবং মনোজ কুমার, লক্ষ্মণন ডি, নিশান্ত মালিক নামের তিন রাইফেলম্যান ওই হামলায় শহিদ হন। অর্থাৎ এই নিয়ে গত তিনদিনে প্রাণ গেল ৪ নিরাপত্তারক্ষীর।

[আরও পড়ুন: ফেসবুক পোস্টে কাশ্মীরকে ‘আজাদ’ বলে উল্লেখ, বিতর্কের মাঝে কী বললেন কেরলের CPM নেতা]
স্বাধীনতা দিবসের (Independence Day) আগে জঙ্গিদের বাড়বাড়ন্ত চিন্তায় রাখছে প্রশাসনকে। এবছরই কাশ্মীরে নির্বাচন করতে চায় কেন্দ্র। তার ঠিক আগে নির্বিঘ্নে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনটা কেন্দ্রের জন্য বড়সড় চ্যালেঞ্জ। সেকারণেই কাশ্মীরজুড়ে করা নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছে। শ্রীনগর শহর মুড়ে ফেলা হয়েছে নিরাপত্তার চাদরে। তা সত্ত্বেও অশান্তি এড়ানো যাচ্ছে না।সংবাদ প্রতিদিন/এনবিএস/২০২২/একে news