ইমরানুরের পর আলোচিত জহিরও থামলেন সেমিফাইনালে

এশিয়ান অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে আরেকটি ইভেন্টের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিল বাংলাদেশ। ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ইমরানুর রহমানের পর ২০০ মিটার স্প্রিন্টেও জহির রায়হানও ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়েছেন। অবশ্য শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চে না থাকতে পারলেও বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে তারা সেরাটাই দিয়েছেন।

শনিবার (১৫ জুলাই) বিকেলে থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অনুষ্ঠিত ২০০ মিটার স্প্রিন্টের সেমিফাইনালে প্রথম হিটে অংশ নিয়েছিলেন জহির রায়হান। তিনি ২১.৬৯ সেকেন্ড টাইমিংয়ে তার হিটে সপ্তম হয়েছেন। সেমিফাইনালে তিন হিট থেকে প্রতি হিটের প্রথম দুই জন এবং বাকিদের মধ্যে সর্বোচ্চ দুই টাইমিংধারী ফাইনালে উঠেছেন। 

 এর আগে শনিবার সকালে ২১.৬৭ সেকেন্ড টাইমিংয়ে সেমিফাইনালে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন জহির। ২০০ মিটারে ৫ টি হিটের দুই নম্বর হিটে চতুর্থ হয়ে সেমিফাইনালে নাম লিখিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বিকেলেই বিদায় নিতে হলো এই অ্যাথলেটকে।

 গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের অ্যাথলেটিক্সে বিশেষ চরিত্র জহির রায়হান। ২০১৭ সালে নাইরোবি যুব অ্যাথলেটিক্স বিশ্বকাপে ৪০০ মিটার ইভেন্টে সেমিফাইনালে উঠে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেন তিনি। ঘরোয়া প্রতিযোগিতায়ও ২০০ ও ৪০০ মিটারে ভালো পারফরম্যান্স করেন জহির।

২০২১ সালে টোকিও অলিম্পিক গেমসে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন জহির। ঐ বছরই নারী নির্যাতনের মামলায় পড়ে জেল খাটেন তিনি। সেই জটিলতা কাটিয়ে আবার আন্তর্জাতিক অ্যাথলেটিক্স অঙ্গনে ফিরেই চমক দেখালেও শেষ পর্যন্ত নিজেকে ফাইনালে তুলতে পারলেন না এই অ্যাথলেট।

এর আগে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে দেশের দ্রুততম মানব ইমরানুর রহমান ফাইনালের কাছাকাছি গিয়েছিলেন। প্রথম বাংলাদেশি অ্যাথলেট হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার সেরা টাইমিং করে সেমিফাইনালে উঠেছিলেন তিনি। তবে দুর্ভাগ্যের কারণে সেমিতে ভালোভাবে শুরু করলেও শেষটা ভালো করতে পারেননি। এবার সেমি থেকে বিদায় হয়ে গেলো জহিরেরও। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি

news