যেকোনো কন্ডিশনে ফাইনাল খেলতে প্রস্তুত আছি: কামিন্স

বিশ্বকাপে নতুনের বদলে ইচ্ছেকৃতভাবে ব্যবহৃত পিচ বেছে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ভারতের বিরুদ্ধে। যদিও প্লেয়িং কন্ডিশন অনুসারে আইসিসির নিয়ম বিরুদ্ধ কিছু নয় এটি। সেমিফাইনালে ব্যবহৃত পিচে খেলা হওয়ায় স্বাগতিকদের নিয়ে অনেকে নানা ধরনের কথা বলেছেন। ফাইনালেও আলোচনায় থাকছে এই পিচ। জানা গেছে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামেও ব্যবহৃত পিচে খেলা হবে। যে পিচটায় (পাঁচ নম্বর) ভারত-পাকিস্তান লিগ পর্বে খেলেছিল।

লিগ পর্বের ম্যাচটায় ভারত ৭৩ রানে জয় পেয়েছিল। যদিও ম্যাচটা খেলা হয়েছিল এক মাসের বেশি সময় আগে ১৪ অক্টোবর। তখন আবহাওয়া ছিল উত্তপ্ত আর শুষ্ক। নভেম্বরে এসে এখন আহমেদাবাদে শীতের আমেজের দেখা মিলছে। ঠাণ্ডা নেমে আসছে সন্ধ্যায়।  থাকছে শিশির। এই সময়ে পাঁচ নম্বর পিচে পানি ঢালা হয়েছে। রোল করে আবার ঢালা হয়েছে পানি। কিউরেটর বিশ্বাস করেন, তাতে পিচটা আরও বেশি আর্দ্রতা ধরে রাখবে।      
ইতোমধ্যে দুই দল পিচটা দেখেছে। শনিবার ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে পিচ নিয়ে প্রশ্ন ছুটে আসে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের দিকে। জবাবে তিনি বলেছেন, হ্যাঁ দেখেছি। তবে আমি খুব ভালো পিচ রিডার নই। দেখে মনে হয়েছে খুব মজবুত। ওরা মাত্রই পানি ঢেলেছে। ২৪ ঘণ্টা পার হোক, তখন কিছু বলা যাবে। তবে পিচটা দেখে ভালোই মনে হয়েছে।

কামিন্স ভালো করেই জানেন, পিচটা এর আগে ব্যবহৃত হয়েছে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের বেলায়। পিচ ইস্যু নিয়ে তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল যে হোম অ্যাডভান্টেজের কারণে এই পিচের বিষয়টা ভারতকে কতটা সুবিধা দেবে। জবাবে কামিন্স বলেছেন, বিষয়টা অত ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াবে না। কারণ, আসলে বিষয়টা নিয়ে সেভাবে বলা কঠিন। আমার কাছে সেটা দুই দলের জন্যই সমান মনে হয়। তবে নিজের দেশে খেলা অবশ্যই বাড়তি অ্যাডভান্টেজ। কিন্তু আমরাও তো এখানে অনেক দিন ধরে খেলছি।

তিনি আরো বলেন, আমার মনে হয় এই ভেন্যুতে টসটা অত গুরুত্বপূর্ণ নয়। যদি মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে কিংবা অন্য ভেন্যুর কথা আসে। তবে যাই হোক আমরা সেটার জন্য প্রস্তুত থাকবো। এটা নিশ্চিত করবো যাতে পরিকল্পনা থাকে।  সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি

news