ফেসবুক পোস্টে কাশ্মীরকে ‘আজাদ’ বলে উল্লেখ, বিতর্কের মাঝে কী বললেন কেরলের CPM নেতা

 তীব্র বিতর্কে জড়িয়েছেন কেরলের (Kerala) সিপিআইএম (CPIM) বিধায়ক কেটি জলিল (KT Jaleel )। গতকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতীয় সেনাকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন তিনি। নিজের মন্তব্যে পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ‘আজাদ কাশ্মীর’ হিসেবে উল্লেখ করেন। এইসঙ্গে জম্মু ও কাশ্মীরকে ‘ভারত অধিকৃত কাশ্মীর’ বলেন। এরপরই কেরলের প্রাক্তন মন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে নিন্দার ঝড় ওঠে। আসরে নামে গেরুয়া শিবির। যদিও শনিবার জলিল দাবি করেন, তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করে অযথা জলঘোলা হচ্ছে।

গতকাল ফেসবুকে পোস্টে জলিল লেখেন, কাশ্মীরের পরিস্থিতি উজ্জ্বল নয় মোটেই। উপত্যকার সর্বত্র ভারতীয় সেনা ছড়িয়ে রয়েছে। পুলিশকর্মীরা বন্দুক কাঁধে নিয়ে ঘোরেন। প্রত্যেক ১০০ মিটারে সেনা থাকে। তিনি দাবি করেন, কাশ্মীরের মানুষ হাসতে ভুলে গিয়েছেন। তাঁর আরও বক্তব্য, উপত্যকাবাসী মোদী সরকারের ৩৭০ ধারা সংক্রান্ত সিদ্ধান্তে মোটেই খুশি নয়। এরপরই লেখেন, “পাকিস্তান সংলগ্ন কাশ্মীরের অংশটি আজাদ কাশ্মীর হিসেবে পরিচিত।” এছাড়াও জম্মু ও কাশ্মীরকে ‘ভারত অধিকৃত কাশ্মীর’ বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জলিলের এমন মন্তব্যে হইচই শুরু হয়। বিজেপি কটাক্ষ করে, মুসলিম লিগ থেকে সিপিআইএমে আসা নেতার কাছ থেকে এমনটাই আশা করা যায়। যদিও গতকালই ‘আজাদ কাশ্মীর’ (Azad Kashmir) শব্দটি মুছে ‘পাক অধিকৃত কাশ্মীর’ লেখেন বাম নেতা। তারপরেও বিতর্ক পুরোপুরি থামেনি। যার পর শনিবার নিজের মন্তব্যের সপক্ষে যুক্তি দেন বিতর্কিত নেতা। বলেন, যাঁরা আমার মন্তব্যের ভুল অর্থ করছে তাঁদের প্রতি করুণা হচ্ছে।

শনিবার কেটি জলিল পোস্ট করেন, “তাঁদের প্রতি করুণা হচ্ছে আমার, যাঁরা ঊর্ধ্ব কমা দেওয়া আজাদ কাশ্মীর শব্দটির অর্থ বুঝতে পারছেন না।” যদিও ‘ভারত অধিকৃত কাশ্মীর’ বলতে তিনি ঠিক কী বলতে চেয়েছেন তার জবাব দেননি। এদিকে এই প্রসঙ্গেই প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি (BJP) নেতা সন্দীপ ভারির। তাঁর প্রশ্ন, “বাম নেতা ভারত অধিকৃত কাশ্মীর বলতে ঠিক কী বলতে চেয়েছেন, তা কি ব্যাখ্যা করবেন?সংবাদ প্রতিদিন/এনবিএস/২০২২/একে news