মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ, যুবতী খুনে অভিযুক্ত উত্তরাখণ্ডের বিজেপি নেতার ছেলের রিসর্ট গুঁড়িয়ে দিল প্রশাসন

যৌনতার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ১৯ বছরের যুবতীকে খুনের অভিযোগ উঠেছিল। বিজেপি নেতার সেই অভিযুক্ত ছেলের রিসর্ট গুঁড়িয়ে দিল উত্তরাখণ্ড সরকার। মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামির (PS Dhami) নির্দেশে শুক্রবার রাতেই হৃষীকেশের ভান্তারা রিসর্ট গুঁড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

ঘটনার সূত্রপাত দিন সাতেক আগে। উত্তরাখণ্ডের হৃষিকেশের কাছে বিজেপি (BJP) নেতা বিনোদ আর্যর ছেলে পুলকিত আর্যর (Pulkit Arya) ছেলের রিসর্টে কর্মরত ১৯ বছরের এক যুবতী নিখোঁজ হয়ে যান। অঙ্কিতা ভাণ্ডারী নামের ওই যুবতীর পরিবার থানায় মিসিং ডায়েরি করে। একইভাবে মিসিং ডায়েরি করে রিসর্টের মালিক পুলকিতও। কিন্তু এরই মধ্যে অভিযোগ উঠতে থাকে, বিজেপি নেতার ছেলে পুলকিত নিজেই ওই যুবতীকে খুন করেছে। পুলকিত ওই যুবতীকে যৌনতার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু তিনি তাতে রাজি না হওয়ায়, তাঁকে খুন করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই অভিযোগ ছড়িয়ে পড়তেই ওই বিজেপি নেতার ছেলেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সেই সঙ্গে তাঁর রিসর্টের ম্যানেজার ও এক কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়। উত্তরাখণ্ড পুলিশের দাবি, পুলকিত এবং ওই দুই কর্মী মিলে ১৯ বছরের ওই তরুণীকে খুন করেছে। তাঁদের জবানবন্দি অনুযায়ী গতকাল বিকেল থেকে স্থানীয় একটি খালে অঙ্কিতার দেহ খোঁজা হচ্ছিল। শনিবার পচা-গলা অবস্থায় অঙ্কিতার দেহ খুঁজে পাওয়া যায়। সেটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্ত পুলকিতের বাবা উত্তরাখণ্ডের প্রভাবশালী বিজেপি নেতা। একটা সময় রাজ্যের মন্ত্রীও ছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় অস্বস্তিতে পড়ে যায় বিজেপি। তাছাড়া শুরুর দিকে এই ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে আড়াল করারও অভিযোগ উঠেছিল পুলিশের বিরুদ্ধে। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শোরগোল পড়ে যায়।


ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই আসরে নামতে হয় মুখ্যমন্ত্রী ধামিকে। তিনি শুক্রবার রাতেই অভিযুক্তের রিসর্ট গুঁড়িয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। এদিন সকালে এই ঘটনার তদন্তের জন্য একটি বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট গঠনের কথাও ঘোষণা করেছেন তিনি।

সংবাদ প্রতিদিন /এনবিএস/২০২২/একে news