বিজেপি নেতা মিঠুন চক্রবর্তী ‘বাংলার কলঙ্ক’: কুণাল  

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির রাজ্য কোর কমিটির সদস্য মিঠুন চক্রবর্তীকে ‘বাংলার কলঙ্ক’ বলে মন্তব্য করলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র  কুণাল ঘোষ। তিনি আজ (শনিবার) বিজেপি নেতা মিঠুন চক্রবর্তীর তীব্র সমালোচনা ও কটাক্ষ করেন। 

তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ বলেন, ‘অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী বাংলার গর্ব। কিন্তু নেতা মিঠুন চক্রবর্তী বিশ্বাসঘাতক, দলবদলু মিঠুন চক্রবর্তী বাংলার কলঙ্ক।’ অভিনেতা ও বিজেপি নেতা মিঠুন চক্রবর্তী রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত  মজুমদারের সঙ্গে আজ (শনিবার) বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে বলেন, ‘রাজ্যে যেদিন বিজেপি সরকার আসবে এত বিনিয়োগের বন্যা বইবে যে চোখে দেখে ভাববেন যে এটা সত্যি, না স্বপ্ন!’ এরপরেই ওই ইস্যুতে রাজনৈতিক মহলে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। 

আজ (শনিবার) তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, ‘মিঠুন দাকে শিখিয়ে পড়িয়ে চিত্রনাট্য দিয়ে কিছু কথা বলতে বিজেপি পাঠিয়েছে। কিন্তু সামনে যে বিধানসভা ভোট নয়, বিধানসভা ভোট হয়ে গেছে, এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়য়ের নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস সরকার গঠন করেছে। সামনে যেটা আসছে পঞ্চায়েত ভোট- এই অ-আ-ক-খ গুলোও শেখাতে ওরা ভুলে গেছে। পঞ্চায়েত আলাদা, বিধানসভা আলাদা, লোকসভা আলাদা। দ্বিতীয়ত, কেন্দ্রের বিজেপি সরকার তারা যেভাবে সারা দেশে রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পের সর্বনাশ করেছে, বেচে দিয়েছে, এয়ার ইন্ডিয়াটাও বেচে দিল! মিঠুন দা যাতায়াত করে, জানে তো এসব।’    

সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেছেন, ‘উনি তো তৃণমূলের এমপি ছিলেন, তখন এসব কথা বলতেন। এখন বিজেপির নেতা হয়েছেন এখনও এসব কথা বলছেন। তখন ওর কথার কী মূল্য ছিল, আর এখন ওই কথার কী মূল্য আছে আমি জানি না। মিঠুন চক্রবর্তীর কথা গুরুত্বসহকারে নেওয়ার কোনো কারণ নেই। বিজেপিশাসিত ত্রিপুরায় মনে হয় একেবারে বিনিয়োগের বন্যা বয়ে যাচ্ছে! কিংবা অসমে বা বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলোতে।’ 

রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী এমপি বলেছেন, ‘বিজেপি যেসব রাজ্যে ক্ষমতায় আছে সেখানে কী জোয়ার আছে, না ভাঁটা আছে শিল্পে বিনিয়োগে? সিনেমার ডায়ালগ দিতে দিতে অভ্যস্ত হয়ে গেছে, কী আর করা যাবে।’    

আজ (শনিবার) বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুরের একটি বেসরকারি হোটেলে দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে পাশে নিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্যে বিনিয়োগের বন্যা আসবে বলে মন্তব্য করেন মিঠুন চক্রবর্তী।
খবর পার্সটুডে/এনবিএস/২০২২/একে

news