বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মাকে গ্রেফতারের দাবি

মহানবী হযরত মুহাম্মদ(সা.)কে নিয়ে বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মার করা আপত্তিকর, অগ্রহণযোগ্য, বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি বলেন, ‘ওই ঘটনায় অর্থনীতির ব্যাপক ক্ষতি হতে চলেছে, যার জন্য শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী মোদি দায়ী থাকবেন। আমরা ওই মুখপাত্রকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি। তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না কেন? কানপুরে গন্ডগোল হলে ৩৫ জনের বিরুদ্ধে জাতীয় সুরক্ষা আইন কার্যকর হয়। কোনও বিশৃঙ্খলা হতো না যদি আপনি আপনার মুখপাত্রের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতেন।’ 

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি আরও বলেন, ‘যদি উপসাগরীয় দেশগুলোতে বসবাসকারী আমাদের দেশের নাগরিকদের বিরুদ্ধে ঘৃণ্য সহিংসতা শুরু হয়, তাহলে দায়ী কে হবেন প্রধানমন্ত্রীজি? আপনার পররাষ্ট্রনীতি কি? এমনটা কখনো হয়নি যে, আরব দেশগুলো দেশের রাষ্ট্রদূতদের ডেকে বলছে যে আপনারা ভুল বলেছেন, ক্ষমা চান। উপ-রাষ্ট্রপতি কাতারে থাকাকালীন সেখানে রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রশ্ন করা হচ্ছে। এটা কতটা অপমানজনক!’

ওয়াইসি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা ১০ দিন ধরে বলে আসছি যে পদক্ষেপ গ্রহণ করুন, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় মুসলমানদের কথা শোনেন না। আপনি কানপুরের ঘটনার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। অন্যদিকে, আপনার মুখপাত্র ঘরে আরাম করে বসে আছেন। কেউ ফেসবুক বা টুইটারে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কিছু বললে তো দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।   

অন্যদিকে, উত্তর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বিএসপি নেত্রী মায়াবতী বিজেপিকে পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, যারা এ ধরনের বক্তব্য দেয় বিজেপির উচিত তাদের লোকদের কঠোরভাবে দমন করা। তিনি বলেন, এ ধরনের লোকদের শুধু দল থেকে বহিষ্কার করে কোনো কাজ হবে না, তাদের কঠোর আইনে কারাগারে পাঠানো উচিত। মায়াবতী আরও বলেন, বিএসপির দাবি, কানপুরের সাম্প্রতিক সহিংসতার বিরুদ্ধে পুলিশি পদক্ষেপে নিরীহ মানুষ যেন হয়রানি না হয়।

ভারতে সব ধর্মের মানুষ বাস করে, তাই সব ধর্মকে সম্মান করা দরকার। কোনো ধর্মের জন্য আপত্তিকর ভাষা ব্যবহার করা ঠিক নয় বলেও মন্তব্য করেন উত্তর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বিএসপি প্রধান মায়াবতী। 

news